দৌলতখানে ফারহান-৫ লঞ্চের ধাক্কায় এক নারীর পা বিচ্ছিন্ন

দৌলতখান প্রতিনিধি: ঢাকা-বেতুয়া (চরফ্যাশন) রুটে দিন দিন বেপরোয়া হয়ে উঠছে ফারহান-৫ লঞ্চ। চালকের অদক্ষতা ও বেপরোয়া কর্মকাণ্ডে একের পর এক দুর্ঘটনায় নিহত ও আহত হয়ে পঙ্গুত্ব বরণ করার অভিযোগ পুরনো। সেই নেতিবাচক কর্মকাণ্ডে আবারও জড়ালো এই লঞ্চের নাম।

শনিবার রাত সাড়ে আটটার দিকে দৌলতখান ঘাটে ফারহান-৫ লঞ্চের ধাক্কায় কহিনুর নামে এক যাত্রীর বাম পা বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ওই নারী পন্টুনে থাকলেও ফারহান লঞ্চের বেপরোয়া ধাক্কায় তিনি স্থিতিশীলতা হারিয়ে ফেলেন। এতে তিনি লঞ্চের সঙ্গে ধাক্কা খান। এর ফলে সঙ্গে সঙ্গে ওই নারীর পা বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। তার অবস্থার অবনতি দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্য ভোলা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

লঞ্চঘাটে এসে পা হারানো কহিনুরের বাড়ী দৌলতখানের নুর মিয়ার হাট এলাকায়।

দৌলতখান থানার এসআই জাহিদ ভোলা প্রতিদিনকে জানান, লঞ্চ ঘাটে ভেড়ানোর পর ওই নারী পন্টুনে ছিলেন। এসময় লঞ্চ কিছুটা পেছন দিকে গেলে আবার সামনের আনার সময় লঞ্চের সাথে ওই নারী ধাক্কা খান। এসময় সঙ্গে সঙ্গে তার পা বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। আমরা তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ভোলা সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছি।

দৌলতখান থানার ডিউটি অফিসার বলেন, বাদী না থাকায় এ ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কোনো মামলা দায়ের করা হয়নি। তবে ভুক্তভোগী বা তার পক্ষে কেউ বাদী হয়ে মামলা করলে তা গ্রহণ করা হবে।