লালমোহনে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার

ভোলার লালমোহনে চরভূতা ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড তারাগঞ্জ মোল্লা বাড়ি থেকে জলেখা (২২) নামের এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার সকাল ৭টায় মোল্লা বাড়িতে ওই গৃহবধূর স্বামী সাকিলের ঘর থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়।

জলেখার পিতা অভিযোগ করেন, প্রায় ৩ বছর পূর্বে পাশ্ববর্তী গ্রামের মোল্লা বাড়ির মৃত মুজাহারের ছেলে সাকিলের সাথে তার মেয়েকে বিবাহ দেন। বিয়ের পর থেকে যৌতুকের জন্য জলেখাকে নির্যাতন করত স্বামী সাকিল। এ নিয়ে কয়েকবার সালিশ বৈঠক হয়। তার রেশ ধরেই সাকিল তার স্ত্রী জলেখাকে পুকুরের পানিতে ডুবিয়ে মেরে স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে বলে প্রচার করে।

তবে জলেখার স্বামী সাকিল জানায়, বৃহস্পতিবার রাতে একত্রে ভাত খেয়ে আমরা ঘুমিয়ে পড়ি। শুক্রবার সকালে ঘুম থেকে উঠে স্ত্রী জলেখাকে না পেয়ে খোঁজাখুঁজির একপর্যায়ে পুকুরের ঘাটলায় পানিতে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। জলেখার মৃগী রোগ ছিল বলেও দাবি করেন সাকিল।

লালমোহন থানার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মাহামুদুল হাসান জানান, গৃহবধূর মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করেছি। সুরতহাল রিপোর্ট করে ময়না তদন্তের জন্য ভোলা মর্গে পাঠানো হয়েছে। গৃহবধূর মাথায় জখমের চিহ্ন পাওয়া গেছে।